আমাদের কমিউনিটিইংল্যান্ডএডিটর্স পিকস

লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের নতুন অফিস উদ্ভোধন

বিলেতে শত বছরের বাংলা সাংবাদিকতার স্মারক প্রতিষ্ঠান, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের স্থায়ী অফিস প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। দীর্ঘ ২৫ বছর পর নিজস্ব ঠিকানা পেলো বাংলা গনমাধ্যমকর্মীদের এই সংগঠন। গত ১৬ নভেম্বর শুক্রবার ক্লাবের বিপুল সংখ্যক সদস্যদের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ভোধন করা হলো নতুন অফিস। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ক্লাবের বর্তমান-সাবেক নেতৃবৃন্দ বলেছেন- নতুন অফিস উদ্ভোধনের মধ্য দিয়ে প্রেসক্লাবের নবযুগের সূচনা হলো।

পূর্ব লন্ডনের ঐতিহ্যবাহী বাংলাটাউন সংলগ্ন বৃকলেইনের প্রিন্সলেট স্ট্রীটে সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় ক্লাবের অফিস আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়। ক্লাব সভাপতি সৈয়দ নাহাস পাশা ও সাধারন সম্পাদক মুহাম্মদ জুবায়ের নির্বাহী কমিটির সকল সদস্যদের নিয়ে ফিতা কেটে এর শুভ সূচনা করেন। পরে অফিস হলে আয়োজিত সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, চ্যানেল এস-ও চেয়ারম্যান আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী জেপি, ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মুহিব চৌধুরী, সাবেক সভাপতি বেলাল আহমদ, নবাব উদ্দিন, বাংলাদেশের দৈনিক সমকাল-এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি, ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাসন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সাত্তার, মোহম্মদ এমদাদুল হক চৌধুরী, প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শেখ মোজাম্মেল হোসেন কামাল ও অফিসের ল্যান্ডলর্ড এসএসবিএ‘র চেয়রম্যান আজিজ চৌধুরী, ক্লাবের সহ সভাপতি মাহবুবুর রহমান ও ট্রেজারার আ স ম মাসুম।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ১৯৯৩ সালে মাত্র কয়েকজন সংবাদ কর্মী নিয়ে যাত্রা শুরু করা লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাব এখন কমিউনিটির একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। বিলেতে বাংলা গনমাধ্যম যেভাবে বিকশিত হয়েছে, তেমিন বৃদ্ধি পেয়েছে প্রেস ক্লাবের ইমেজ। কিন্তুু নানা বাস্তবতায় ক্লাবের জন্য স্থায়ী অফিস প্রতিষ্ঠা এতোদিন সম্ভব হয়ে উঠেনি।

ক্লাব নেতৃবৃন্দ বলেন, স্থায়ী অফিসের জন্য ক্লাব সদস্যদের পক্ষ থেকে অনেক চাপ ছিলো। তাদের এই দাবী অবশেষে বাস্তবায়ন হলো। নতুন অফিস উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে ক্লাবের নতুন যুগের সূচনা হয়েছে বলে মনে করেন নেতৃবৃন্দ।

অফিস উদ্বোধনের পরে ক্লাবের সদস্যরা বর্তমান কমিটির সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ কমিটির সদস্যদের ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানান।

উল্লেখ্য লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাব ১৯৯৩ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিলেতের প্রচীনতম সাপ্তাহিক পত্রিকা জনমতে অস্থায়ী কার্যালয় হিসেবেই ব্যবহৃত হয়।

অনুষ্ঠানে ক্লাব নেতৃবৃন্দ জানান, শীঘ্রই অফিস ক্রয়ের জন্য ব্যাংকের রাখা ফান্ড দিয়ে ঘর কিনা হবে এবং সেখান থেকে আয়কৃত অর্থ দিয়েই অফিসের ভাড়াসহ অন্যান্য খরব মেঠানো সম্ভব হবে। কমিউনিটির মানুষ ও সংগঠনগুলো প্রেসকনফারেন্সের জন্য নির্দিষ্ট ফি‘র বিনিময়ে ক্লাবের অফিস ব্যবহার করতে পারবেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close