আমাদের কমিউনিটি

বার্মিংহাম প্রবাসী আলহাজ্ব মো. নজীর আলীর ইন্তেকাল

তাসলিমা খানম বীথি: দেশে এসে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। নাড়ীর টানে দেশে এসেছিলেন প্রবাসী মো.নজীর আলী। আত্মীয়-স্বজন আর প্রিয় মানুষদের সাথে দেখা হবে, কথা হবে। কত কথা জমা ছিলো। অনেকদিনের জমানো প্রবাসে থাকা কথা বলবেন আর জানবেন দেশের মানুষ ও মাটির কথা। মানুষের কল্যানে কাজ করবেন। দেশের ছুটি কাটিয়ে ফিরে যাবেন আবার প্রবাসী জীবনে। কিন্তু তিনি আর প্রবাসে ফিরলেন না। সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে প্রবাসী মো. নজীর আলী।
যুক্তরাজ্য (ইউনাইটেড কিংডম) প্রবাসী আলহাজ্ব মো. নজীর আলী ইন্তেকাল করেছেন। গত ২ জানুয়ারি বুধবার সকালে বাংলাদেশে অবস্থানকালে সুনামগঞ্জ পৌরসভার ওয়েজখালী’র তার নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৬৩ বছর। তিনি স্ত্রী মনোয়ারা বেগম, এক পুত্র নাজমুল হোসেন সনেট, তিন মেয়ে শানাজ হোসেন, মিনাজ নুর এবং শাবনাজ হোসেন সহ দেশেবিদেশে অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন রেখে গেছেন।

প্রবাসী মো. নজীর আলী কলামিস্ট ও কবি মোহাম্মদ আব্দুল হক ‘র ভগ্নিপতি। তিনি জীবদ্দশায় তাঁর নিজ গ্রাম কামরূপ দলং এবং অন্যান্য এলাকায় মসজিদ – মাদ্রাসায় উন্নয়নকাজে সহযোগিতা করেন। এছাড়াও তিনি গরীব আত্মীয় – স্বজনের ছেলেমেয়ের বিয়ে-সাদি, লেখাপড়া ও ঘর বানিয়ে দিতে সর্বদা সহযোগিতা করেছেন। তাঁর মৃত্যুর খবর পেয়ে ইংল্যান্ডের বার্মিংহাম থেকে তাঁর ছেলেমেয়ে সহ পরিবারের সকল সদস্য বাংলাদেশে ছুটে আসেন। ৩ জানুয়ারি তাঁর প্রথম জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয় সুনামগঞ্জ শহরের ওয়েজখালী’ র বাসার সামনে এবং দ্বিতীয় জানাজা সম্পন্ন হয় তাঁর গ্রামের বাড়ি কামরূপ দলং মাদ্রাসা মাঠে। দেশবিদেশ থেকে আসা তার কাছের বন্ধু ও স্বজন অংশ নেন। পরে তাঁকে পারিবারিক কবরস্থানে কবর দেওয়া হয়।
তাঁর মৃত্যুতে যারা সমবেদনা প্রকাশ করেছেন তাদের প্রতি পরিবারের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close