সমগ্র বিশ্ব

ভয়াবহ বন্যা অস্ট্রেলিয়ায়

অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় অঙ্গরাজ্য কুইন্সল্যান্ডের টাউন্সভিল শহরে শুরু হওয়া ভয়াবহ বন্যায় দু’জনের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া গেছে। গত কয়েকদিনের বন্যায় ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদ স্থানে চলে গেছেন সেখানকার হজার হাজার মানুষ। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার টাউন্সভিল শহরের একটি পার্কের পাশে পড়ে থাকা দুটি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দেশটিতে তীব্র খরা ও গরমের পর শুরু হওয়া এ বন্যাকে ‘ওয়ান্স ইন এ সেঞ্চুরি’ বা শতাব্দীর ভয়াবহ বন্যা হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়া পুলিশ নিশ্চিত করেছে উদ্ধার হওয়া মরদেহগুলো ২১ ও ২৩ বছর বয়সী দুজন ব্যক্তির। গত সোমবার তারা নিখোঁজ হওয়ার পর উদ্ধার অভিযান চালিয়ে তাদের মরদেহ পাওয়া যায়। তবে ওই মরদেহ দুটির ব্যাপারে আর কোনো বিস্তারিত তথ্য দিতে পারেনি পুলিশ।

দেশটির আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গেছে, টাউন্সভিল শহরে গত দশ দিনে এক মিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। যা ওই অঞ্চলের বার্ষিক গড় বৃষ্টিপাতের সমান। কর্মকর্তারা বলছেন, টানা বৃষ্টিপাতের ফলে সৃষ্ট বন্যায় হাজার হাজার বাড়িঘর পানিতে নিমজ্জিত হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়েছে, বন্যার কবলে পড়ে আটক অবস্থায় আছেন অন্তত ১৯ জন। তাদেরকে উদ্ধার করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ। যেসব এলাকায় বন্যার পানি কম ঢুকেছে সেসব অঞ্চলে ছোট নৌকা, ট্যাংক ও ট্রাকের মাধ্যমে আটক বাসিন্দাদের উদ্ধার করছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মীরা।

তবে মঙ্গলবার রাজ্যের কিছু কিছু এলাকায় বন্যার পানি নামতে শুরু করেছে বলে জানা গেছে। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বন্যাকবলিত শহরটি সফর করেছেন। এসময় তিনি স্থানীয় উদ্ধারকর্মীদের প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা জানতে পেরেছি এখন পর্যন্ত দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু সবাইকে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়েছে। যা আমাদের জন্য একটি অনন্য অর্জন।’

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close