ইংল্যান্ডএডিটর্স পিকসখবরটপ স্টোরিজ

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভোট আজ

যুক্তরাজ্য ইউরোপিয় ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে যাওয়ার আগে কোন চুক্তি হবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত হবে আজ। হাউজ অব কমন্সে ব্রিটিশ এমপিরা থেরেসা মে’র করা ব্রেক্সিট চুক্তির উপর ভোট দিবেন। যদি থেরেসার চুক্তি এবারও পাশ না হয়, তবে চুক্তিহীন ব্রেক্সিট হবার সম্ভাবনা প্রবল। তবে চুক্তি বাতিল হয়ে গেলে পরক্ষণেই আরো একটি ভোটে অংশ নেবেন এমপিরা। এই ভোটে চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের পক্ষে ভোট দেয়ার সুযোগ থাকবে। সেটি যদি পাশ হয়, তবে থেরেসার পরিকল্পনা অনুযায়ী ব্রেক্সিট হবে না তা বলাই যায়। এমনকি পিছিয়ে যেতে পারে ব্রেক্সিট সময়সীমাও। এমনিতে আগামী ২৯ মার্চ স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইউরোপিয় ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে যাবে যুক্তরাজ্য। বিবিসি, সিএনএন, গার্ডিয়ান, টেলিগ্রাফ।

ক্ষমতাসীন টোরি পার্টির একাধিক সদস্য বলেছেন, এই ‘অর্থপূর্ণ ভোটে’ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র হেরে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। তবে থেরেসা জানিয়েছেন, সবকিছুর পরেও এই ভোট অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি মুখপাত্র জানিয়েছেন, এই ভোট আয়োজনে পার্লামেন্টের কাছে তিনি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। পার্লামেন্ট যদি চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়ে আর্টিকেল ৫০ এর মেয়াদকাল বাড়ায়, তিনি একে সম্মান করবেন। কাল লন্ডন সময় রাতে ভোট দেবেন এমপিরা। এটি পাশ হলে ২৯ মার্চ হবে ব্রেক্সিট। এটি যদি পাশ না হয়, তবে ১৩ মার্চ আরো একটি ভোট হবে চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের পক্ষে। এটি পাশ হলেও ২৯ মার্চ ব্রেক্সিট হবে। আর পাশ না হলে ১৪ মার্চ ৫০ অনুচ্ছেদের সময়সীমা বর্ধিত করার বিষয়ে একটি ভোট। এটি যদি পাশ না হয়, তবে তৈরী হবে সত্যিকারের বড় ধরণের অচলাবস্থা। যার সমাধান কিভাবে হবে এখনও জানা নেই। আর পাশ হলে ২১ তারিখের বিশেষ সম্মেলনে ব্রাসেলস-এ এই প্রস্তাব উঠবে। আর পাশ না হলে তৈরী হবে অচলাবস্থা। আর পাশ হলে ব্রেক্সিট পেছাবে। আর যদি ইউরোপিয় নেতারা স্বল্প মেয়াদের বর্ধিত সময়সীমায় রাজি না হয়ে দীর্ঘমেয়াদী মেয়াদ বাড়াতে সম্মত হন তবে হাউজ অব কমন্সে তা ফিরে যাবে। এটি পাশ হলে দীর্ঘমেয়াদে পেছাবে ব্রেক্সিট। আর যদি পাশ না হয়, বড় ধরণের আইনি এবং রাষ্ট্রীয় অচলাবস্থা তৈরী হবে।

যে অচলাবস্থার কথা বলা হচ্ছে, তার সমাধানের বেশ কিছু পথ তৈরী হবে। ফলে হতে পারে চুক্তিহীন ব্রেক্সিট, দ্বিতীয় গণভোট, নতুন পরিকল্পনা অথবা মে’র চুক্তিতে তৃতীয় বার ভোট হতে পারে। তবে সেই সম্ভাবনা প্রায় শূণ্য। এদিকে ইউরোপিয় ইউনিয়ন জানিয়েছে, নতুন করে ভাবার আর কিছুই নেই। বল এখন ব্রিটিশ এমপিদের কোর্টে। তার আর নতুন কিছু বিবেচনা করবেন না। যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার সম্পূর্ণভাবে নিতে হবে ব্রিটিশ এমপিদের।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close