ধর্ম

রমজান মাসে তারাবি নামাজের বিশেষ দোয়া ও নিয়ত

রমজান মাসে ইশার নামাজের পর বিতরের পূর্বেই বাংলাদেশের মসজিদে মসজিদে শুরু হয়ে যায় তারাবি নামাজ। এ নামাজ সমগ্র মুসলিম উম্মাহর জন্য এক বিরাট নিয়ামত। নামাজের মাধ্যমে বান্দাগণ আল্লাহর নৈকট্য অর্জনের জন্য ব্যস্ত থাকে। সাচ্চা দিল ঈমানদার ধীরে ধীরে রাত্রি জাগরণ করে কিয়ামুর রমজান বা তারাবি নামাজ আদায় করে। লক্ষ্য থাকে শুধু একটাই, আল্লাহর রহমত বরকত ও মাগফিরাত লাভ করা। এ নামাজের নিয়ত ও প্রতি চার রাকাআ পর পর পঠিত বিশেষ দোয়া তুলে ধরা হলো-

তারাবি নামাজের পদ্ধতি : প্রনিধানযোগ্য মত হচ্ছে যে, তারাবি নামাজ দুই দুই রাকাত করে আদায় করা। প্রত্যেক চার রাকাত নামাজ আদায়ের পর দোয়া, তওবা-ইস্তিগফার করা এবং রাত্রি জাগরণ করে আল্লাহর দরবারে রোনাজারি করা।

তারাবির বিশেষ দোয়া : (উচ্চারণ) ‘সুবহানাযিল মুলকি ওয়াল মালাকুতি, সুবহানাযিল ইয্যাতি, ওয়াল আযমাতি, ওয়াল হাইবাতি, ওয়াল কুদরাতি, ওয়াল কিবরিয়াই, ওয়াল যাবারুত। সুবহানাল মালিকিল হাইয়্যিল্লাজি লা-ইয়ানামু ওয়ালা ইয়ামুতু। সুব্বুহুন কুদ্দুছুন রাব্বুনা ওয়া রাব্বুল মালাইকাতি ওয়ার রূহ; আল্লাহুম্মা আঝিরনা মিনান্নারি, ইয়া মুঝিরু, ইয়া মুঝিরু, ইয়া মুঝির; (বিরাহমাতিকা ইয়া আরহামার রাহিমিন)।’

তারাবিহ নামাজের নিয়ত : (উচ্চারণ) ‘নাওয়াইতু আন উসাল্লিয়া লিল্লাহি তাআলা, রাকাআতাই সালাতিত তারাবিহ সুন্নাতু রাসুলিল্লাহি তাআলা, (ইক্বতাদাইতু বিহাজাল ইমাম) মুতাওয়াঝঝিহান ইলা ঝিহাতিল কাবাতিশ শারিফাতি, আল্লাহু আকবার। (ইমামের পিছনে নামাজ পড়লে বন্ধনীর অংশটুকুসহ পড়া)

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে তারাবি নামাজ ধীরস্থতার সাথে আদায় করে তাঁর নৈকট্য অর্জন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close