আমাদের কমিউনিটিইংল্যান্ডএডিটর্স পিকসটপ স্টোরিজ

লন্ডন এক্সপো’তে বিপুল সাড়া

ইউরোপের বাজারে বাংলাদেশের গার্মেন্টস ও ফ্যাশন শিল্পকে তুলে ধরতে ই-ফ্যাশন ইউকে বিডির আয়োজনে দ্বিতীয়বারের মতো লন্ডন এক্সপো অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেন্ট্রাল লন্ডনের বিখ্যাত কংগ্রেস সেন্টারে ২৯ মে বুধবার এই প্রদর্শনী শুরু হয়। ট্রেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রির শীর্ষ ব্যবসায়ী, বিভিন্ন শ্রেনী পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে লন্ডন এক্সপো ২০১৯ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাই কমিশনার বলেন, গার্মেন্টস এবং টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রিতে বাংলাদেশ বিশ্বে শীর্ষস্থানীয়। পৃথিবীর সেরা ব্রান্ডগুলোর এখন প্রস্তুুতকারক বাংলাদেশ। গুনগত মান এবং ডিজাইনের জন্য বাংলাদেশী পন্যের সুনাম ও চাহিদা বাড়ছে বিশ্ব বাজারে।
তিনি বলেন, শুধু ব্রিটেনেই গত বছর ৪.৫ বিলিয়ন ইউএস ডলারের পন্য রপ্তানি হয়েছে বাংলাদেশ থেকে। এর মধ্যে ৯০ ভাগ পন্যই হচ্ছে গার্মেন্টস এবং টেক্সটাইল। লন্ডন এক্সপো একটি ব্যতিক্রর্মী এবং সৃজনশীল উদ্যোগ মন্তব্য করে হাই কমিশনার বলেন, এর মাধ্যমে বাংলাদেশকে বিশ্বে প্রমোট করা হচ্ছে।
আয়োজকরা আশা প্রকাশ করেছেন, দুই দিনব্যাপী প্রদর্শনীর মাধ্যমে ক্রেতা ও উদ্যোক্তাদের জন্য একটি যুগোপযোগী প্লাটফর্ম তৈরি হয়েছে। তারা নতুন নতুন প্রযুক্তি ও সেবার সঙ্গে পরিচিত হতে পেরেছেন। ভোক্তা, উদ্যোক্তা, আমদানিকারক ও সরবরাহকারিদের সরাসরি সাক্ষাত ও আলাপচারিতার এ সুযোগ ব্যবসার নতুন দ্বার উম্মোচন হবে।
লন্ডন এক্সাপোর অন্যতম ডাইরেক্টর মাহবুব রহমান ও মেঘনা মিনারা উদ্দিনের পরিচালনায় শুরুতে সবাইকে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- লন্ডন এক্সপো‘র চেয়ারম্যান ও লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের ফাউন্ডার প্রেসিডেন্ট মুহিব চৌধুরী। এ সময় অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত লন্ডন এক্সপোর সিইও মোহাম্মদ লুৎফুর রহমান, বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মাশিয়াল কাউন্সিলার এস এম জাকারিয়া হক, ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের লন্ডন রিজিওনের প্রেসিডেন্ট বশির আহমদ, ডাইরেক্টর ড. সানাওর চৌধুরী ও বক্সিংয়ে ৫ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আলী জাকো।
লন্ডন এক্সপো‘র চীফ এক্সিকিউটিভ অফিসার মুহাম্মদ লুৎফুর রহমান জানান, বাংলাদেশের গার্মেন্টস সেক্টরকে বিশ্ব বাজারে তুলে ধরতে এবং আর্ন্তজাতিক রিটেইলারদের আকৃষ্ট করতে এ আয়োজন। এবারের প্রদর্শনীতে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, তুরস্ক, মিশর, বুলগেরিয়া এবং গানার গার্মেন্টস ব্যবসায়ীরা অংশ নিয়ে তাদের ডিজাইন এবং ফ্যাশন প্রর্দশন করেন।
দু‘দিনব্যাপী এই প্রদর্শনীতে ছিলো ফ্যাশন শো এবং গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে কী নোট উপস্থাপন। ইউকের ক্রিয়েটিভ এবং ডিজাইন স্পেশালিস্ট পিটার ওয়াটসন এবং ডানকান নিকোলাস কী নোট উপস্থাপন করে বিশ্বে পোশাক শিল্পের বর্তমান অবস্থা এবং ভবিষ্যতে কোন দিকে এই শিল্পে মোড় নিচ্ছে তা তুলে ধরার চেষ্টা করেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close