ইংল্যান্ডএডিটর্স পিকসখবরটপ স্টোরিজ

ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূতকে যুক্তরাষ্ট্র ছাড়তে হবে

ট্রাম্প প্রশাসনকে অদক্ষ বলেছিলেন ওয়াশিংটনে নিযুক্ত ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত স্যার কিম ডেরোক। আর সেই ইমেইল ফাঁস হয়ে যেতেই উত্তেজনা হোয়াইট হাউসে। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার জন্যে বলেছিলেন, ‘স্যার কিমের ওপর আস্থা থাকলেও তার ওই বক্তব্যের সঙ্গে আমি একমত নই।’ কিন্তু এতে করে মার্কিন প্রশাসনের গোস্বা কমেনি। বরং থেরেসা মে’র ওই বক্তব্যের পর পরই টুইটারে ঝড় তোলেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বিবিসি

টুইটে ট্রাম্প স্পষ্টই জানিয়ে দিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র স্যার কিমকে আর ভালোভাবে নিতে পারছে না। তাকে আমেরিকার ব্রিটিশ দূতাবাস থেকে বিদায় নিতে হবে, এমনই বক্তব্য উঠে এসেছে ট্রাম্পের আক্রমণাত্মক টুইটগুলো থেকে। ট্রাম্প নিজের মতামত জানিয়ে বলেছেন, ওই ব্যক্তি যুক্তরাজ্যের জন্য কাজ করতে পারবে বলে আমার মনে হয় না। ট্রাম্প একই সাথে ব্রেক্সিট ইস্যুতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close