ফিচার

সাউথ কেরোলিনার চার্লসটনে দাস বিক্রির অকশন প্লেসে কয়েকটা দিন

জুয়েল সাদত :

প্রতি বছর সামারে আমেরিকানদের মত আমরাও ঘুরে বেড়া্ই । নানান শহর নানান ষ্টেট আমেরিকার জানার শেখার ও দেখার শেষ নাই । গত বছর মিশিগানের ফোর্ড মিউজিয়ামে গিয়েছিলাম । গাড়ীর বরপুত্র ফোর্ড মিউজিয়াম না দেখলে অনেক কিছুই অপুরন থাকত । মোটর গাড়ীর ইতিহাসে ফোর্ড অনন্য ভুমিকা রেখেছে । আমেরিকার সব প্রেডিডেন্ট দের গাড়ী গুলো ওখানে আছে । এবার সামারে বাই রোডে প্লান করলাম দুটো জায়গায় – জর্জিয়ার সাভানা ও সাউথ কেরোলিনার চার্লসটন শহরে । ২১ জুন সকাল দশটায় যাত্রা করে কিসিমি থেকে সাড়ে ৪ ঘন্টায় পৌছালাম সাভানায় । যে হোটেলটায় টায় দুদিন থাকব বলে ঠিক করেছিলাম সেটায় চেক ইন করে ছেলে মেয়েদের মন খারাপ কারন ওয়াই ফাই কাজ করছিল না । তাও আবার ইন্ডিনিয়ান মেনেজম্যান্ট । অনেক কষ্টে হোটেল ক্যান্সেল করে পাশেই আরেকটি হোটেল এ উঠে যাই । আমি আমার স্ত্রী মাহফুজা ,মেয়ে ওয়াদিয়া (১৪ ) ওয়াসি (৮) ওয়াফিক ( ৬ ) ও ওয়াফা ( ৩ ) আমাদের ৬ জনের বহর । হোটেলে খাওয়া দাওয়া করেই আমরা চলে যাই সাভানা ( জর্জিয়া )র বিখ্যাত টাইবি আইল্যান্ড । আইল্যান্ড সম্পর্কে অনেকের ধারনা নেই , আইল্যান্ডগুলো অনেক সুন্দর ,গোছালো ।

Savana, Georgia.. আমেরিকার জর্জিয়া ষ্টেটের সবচেয়ে পুরোনো শহর। স্থাপিত – ১৭৩৩ সালে। এক সময় বৃটিশ কলোনি ছিল। জনসংখ্যা ১ লক্ষ ৪৭ হাজার।। একটি অসাধারণ জায়গা তাইবী ( Tybee island) । ৫.৪ মাইলের আইল্যান্ডে লোকসংখ্যা ৩১২৭ জন। সাভানা রিভার এর মাধ্যমে সাউথ কেরোলিনার সাথে জর্জিয়া সংযুক্ত। অসাধারণ লোকেশন। বাড়ীঘর গুলো ২০০ বছরের পুরোনো সদৃশ্য। তাইবী আইল্যান্ড একটি কোষ্টাল এরিয়ার বর্ডার।। সাভানার মত একটি পুরোনো শহরে দুটো মসজিদের অস্তিত্বের খবর পেলাম। মুসলিমদের পদচারনা পৃথিবীর বৃহদ দেশ আমেরিকার আনাচে কানাচে, ছোট ছোট শহরের অজ পাড়াগায়ে। সাভানায় দুটো মসজিদ। যে শহরেই যাই মসজিদ খুজি। সাভানায় দুদিন থাকার প্লান ছিল ,

সাভানায় অনেক কিছু দেখার পর মনে হল সাউথ কেরোলিনা্য় আরও বিশ্বয় অপেক্ষা করছে । তাই হোটেল ছেড়ে বেরিয়ে পড়লাম , চিন্তা করলাম সারা দিন ঘুরে বিকাল সাউথ কেরোলিনা পৌছাব । ২২ জুন সকালে গেলাম সাভানার আমেরিকার একটি এয়ারফোর্স মিউজিয়ামে। আমেরিকা যতগুলো যুদ্ধ করেছে, সেখানে বিমান বাহিনীর গুরুত্ব ছিল। মিউজিয়ামে সেগুলোর বিরত্ব গাথা। শুক্রবার সাভানা ( জর্জিয়া) জুমার নামাজ পড়লাম” মসজিদ জিহাদ” এ। তারপর আমরা মুসলিম বিশ্বের আইকন মরহুম মুরশির জানাজা পড়লাম।। সাভানা জর্জিয়ার পরোনো শহর ( স্থাপিত ১৭৭৩) সেখানের সবচেয়ে আকর্ষনীয় জায়গা হিসটরিক্যাল ডিস্টি্ক এর মধ্যখানে ব্যয়বহুল জায়গায় আফ্রিকান আমেরিকান রা ৩৪ বছর আগে মসজিদ বানান ,

অনেকটা অবিশ্বাস্য,কিন্তু বাস্তবেই দেখলাম । অনেক সুন্দর গোছালো মসজিদ। আফ্রিকান মুসলমানরা অনেক শত বছর আগেই আমেরিকায় আছেন। নামাজ পড়ে অনেক ভাল লাগল। সাভানায় আফ্রিকান আমেরিকানদের বিচরন অনেক পুরোনো । আটলান্টার জর্জিয়ার সাভানা অনেক পুরোনো হিসটোরিক্যাল সিটি, কোষ্টাল এরিয়া হওয়ায় জায়গাটা অসাধারন । ডাউন টাউনটা অনেক সুন্দর, শত শত বছর আগের পুরোনো বাড়ী ঘর গুলো সেই রকমই আছে । দেখার ও শেখার অনেক কিছু, অনেক পরিছন্ন শহর । ২২ জুন জুমার নামাজ পড়ে আরও বেশ কিছু জায়গা ঘোড়াঘুরি করে সাভানা ছেড়ে সাউথ কেরোলিনার পথে যাত্রা করলাম । আড়া্ই ঘন্টার পথ, ড্রাইভ করছি আর অপরুপ ‍আমেরিকার হাইওয়ে গুলো দেখছিলাম ।

একেক শহরের হাইওয়ে গুলো সৌন্দর্য একেক রকম ।সন্ধ্যায় পৌছালাম সাউথ কেরোলিনা র চার্লসটন শহরে। শহরটা অনক সুন্দর। …

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আরও দেখুন...

Close
Close