সমগ্র বিশ্ব

ট্যুরিস্ট বাসে ছেয়ে যাচ্ছে প্যারিসের রাস্তা

ট্যুরিস্ট বাসে ছেয়ে যাচ্ছে প্যারিসের রাস্তা। আর তা নিয়ে যারপরনাই বিরক্ত সেখানের বাসিন্দারা। পর্যটকদের চাপে চারপাশে যেন নৈরাজ্য। এই ট্যুরিস্ট বাসের এবার রাশ টানতে চাইছেন প্যারিসের কর্তাব্যক্তিরা।

প্যারিসের ডেপুটি মেয়র এমান্যুয়েল গ্রেগরি স্পষ্ট জানিয়েছেন, পর্যটকদের বাসের ইচ্ছেমতো গতিবিধি রুখতে কড়া নীতি বলবৎ হবে। প্যারিসের বাইরে তৈরি হবে পার্কিং লট। গ্রেগরির কথায়, ‘এই বাসগুলি প্যারিসের প্রাণকেন্দ্রে আর আসতে দেয়া যাবে না। পর্যটকদের ভিড়ে নাভিশ্বাস উঠছে প্যারিসের। সেটা রুখতেই এই সিদ্ধান্ত।’

ভেনিস, বার্সেলোনার এই নাভিশ্বাস ওঠার দশা অনেকদিন আগেই হয়েছে। সেখানে পর্যটকদের ভিড়ে শহরের স্বকীয়তা হারানোর অভিযোগ বেশ কিছুদিন ধরে উঠছে। প্যারিসের ক্ষেত্রেও যাতে একই ঘটনা না ঘটে, তা নিশ্চিত করতে তৎপর গ্রেগরি।

তাঁর দাবি, প্যারিস পর্যটকদের থেকে মুখ ফেরাতে চায় না। পর্যটকরা সর্বদাই স্বাগত। তাঁদের ব্যবহারের জন্য বিনামূল্যে শৌচালয়ের ব্যবস্থাও করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পর্যটকদের বাস যে হারে বাড়ছে, সেটা প্যারিসের চিন্তার কারণ হয়ে উঠছে।

গ্রেগরির কথায়, ‘পর্যটকরা চাইলেই জনসাধারণের বাস, সাইকেল ব্যবহার করতে পারেন। তাতে কোনও সমস্যা নেই।’ তবে, ট্যুরিস্ট বাস বন্ধ হলে ট্যুর গাইডরা বিপাকে পড়বেন, স্বীকার করছেন গ্রেগরি। তাঁর সমাধান, ‘ট্যুর গাইডরা বয়স্কদের জন্য সাইকেলে বা পায়ে হেঁটে ঘোরার ব্যবস্থা করুক। শহরের প্রয়োজন বুঝেই তো আমাদের পা ফেলতে হবে।’

ভেনিসে একই সমস্যা ক্রুজ নিয়ে। রাজকীয় এই ক্রুজগুলির সঙ্গে একাধিক ছোট নৌকোর ধাক্কা লাগার ঘটনা ঘটেছে। এই সব দুর্ঘটনা এড়াতে ক্রুজগুলি নিষিদ্ধ করার দাবি তুলেছেন স্থানীয়রা। আমস্টারডামে বছর বছর পর্যটক যে হারে বাড়ছে, তাতে বিজ্ঞাপন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেখানের পর্যটন বোর্ড।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আরও দেখুন...

Close
Close