ইংল্যান্ডএডিটর্স পিকসখবরটপ স্টোরিজ

যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যমে মুসলিমদের নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে

ইউরোপের অন্যতম প্রধান অভিবাসী এবং জাতি বৈচিত্রের দেশ যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যমে মুসলিমদের নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে। অন্তত, ব্রিটিশ গণমাধ্যমের সিংহভাগ তাদের প্রকাশিত প্রতিবেদনে মুসলিম জনগোষ্ঠীর আচরণকে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করেছে। দেশটির সেন্টার ফর মিডিয়া মনিটরিং (সিএফএমএম) নামক গণমাধ্যম পর্যবেক্ষণ সংস্থা প্রকাশিত সা¤প্রতিক প্রতিবেদনে এমন অবস্থা তুলে ধরা হয়েছে। সূত্র: হাফিংটন পোস্ট।

মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেন পরিচালিত সংস্থাটি গত বছরের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর নাগাদ প্রকাশিত ১০ হাজার ৯৩১টি মিডিয়া কাভারেজ বিশে¬ষণ করে জানিয়েছে, এর ৫৯ শতাংশেই মুসলিম স¤প্রদায়ের আচরণকে ঝুঁকিপূর্ণ, সামাজিক মুল্যবোধের বিপরীত বা সা¤প্রদায়িক বিচারে নেতিবাচক হিসেবে চিত্রায়িত করে। এর মাঝে আবার এক- তৃতীয়াংশ প্রবন্ধ, সংবাদ বা টেলিভিশন অনুষ্ঠানে মুসলিম স¤প্রদায়ের অবস্থানকে অপব্যাখ্যা করা হয়েছে। ঢালাওভাবে দোষ চাপানো বা নিন্দার প্রবণতাও ছিলো সেখানে।

সিএফএমএম পরিচালক রিজওয়ানা হামিদ জানান, ব্রিটিশ মিডিয়ার মাঝে যে ব্যাপকহারে ইসলামোফোবিয়া কাজ করছে সেটাই উঠে এসেছে এই প্রতিবেদনে। গতকাল মঙ্গলবার তাদের প্রতিবেদনটি ব্রিটিশ পার্লামেন্টে জমা দেয়া হয়েছে।

প্রতিবেদনে প্রকাশ, যুক্তরাজ্যের ধর্মীয় প্রভাবাধীন এবং দক্ষিণপন্থী গণমাধ্যমের ৩৭ শতাংশ প্রকাশনাই ছিলো ব্যাপক বিতর্কিত। বিশেষ করে, স্কাই নিউজের ১৪ শতাংশ সংবাদ উপস্থাপন ছিলো তীব্র নেতিবাচক।

বিবিসির সাবেক গবেষক এবং টাইমসের সাংবাদিক ফয়সাল হানিফ এই প্রতিবেদনে সহ-স¤পাদনার দায়িত্বপালন করেন। তিনি বলেন, সার্বিকচিত্রে একটি মিশ্র অবস্থা কাজ করছে, ভুলভাবে উপস্থাপনের অজস্র উদাহরণ উঠে এসেছে এখানে। গণমাধ্যম ভুলভাবে উপস্থাপনের এই ধারা মোকাবেলায় ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারে। কারণ তারা, রাষ্ট্রের নীতি নির্ধারকদের প্রভাবিত করার ক্ষমতা রাখে। অনেক ক্ষেত্রে বড় বড় ইস্যুতে রাষ্ট্রনায়কদের চাইতে গণমাধ্যমের প্রভাবই অনেক বেশি।

তিনি আরো জানান, এই ধরনের ক্ষমতা থাকা স্বত্বেও ব্রিটিশ গণমাধ্যম তাদের নৈতিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে। ধারাবাহিকভাবে মিথ্যে তথ্য পরিবেশনের মাধ্যমে সংবাদে মুসলিম স¤প্রদায়কে তাদের বিশ্বাস, আচরণ এবং আদর্শের জন্যে সন্ত্রাসী হামলার ঝুঁকি হিসেবে চিহ্নিত করার প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে। এটা আরো বেশি উদ্বেগের কারণ, নতুন গণমাধ্যম প¬াটফর্মগুলো বিশেষত অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলো তাদের প্রচারিত সংবাদে মুসলিমদের নেতিবাচকভাবে উপস্থাপনের জন্যে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে। তারা ইসলাম বা মুসলিমদের সাথে স¤পর্কিত সকল বিষয়কেই নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করছে।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close