আমাদের কমিউনিটি

যুক্তরাজ্য প্রবাসী ফরিদ উদ্দিন আর নেই

যুক্তরাজ্যের লন্ডনস্থ বাংলাদেশ সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও কোষাধ্যক্ষ ,বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, ব্রিকলেইন জামে মসজিদের ট্রাস্টি মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় যুক্তরাজ্যে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত সৃষ্টি ও অর্থ সংগ্রহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনকারী গোলাপগঞ্জের কৃতি সন্তান খন্দকার ফরিদ উদ্দিন আর নেই । তিনি গত মঙ্গলবার ৩১ মার্চ গভীর রাতে লন্ডন রয়েল হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন ।( ইন্না লিল্লাহি ———- রাজিউন) । মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। তিনি দীর্ঘদিন থেকে বার্ধক্য জনিত রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে , নাতি, নাতনি সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। খন্দকার ফরিদ উদ্দিন ১৯৪১ সালের ২ জানুয়ারি গোলাপগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের চৌঘরী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মরহুম আব্দুন নুর। ১৯৬০ সালে তিনি লন্ডনে পাড়ি জমান। তৎকালীন সময়ে লন্ডনে বাঙালি কমিউনিটির অধিকার আদায়ে যেক’জন ব্যক্তি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন খন্দকার ফরিদ উদ্দিন তাঁদের অন্যতম। অত্যন্ত সৎ সাহসের অধিকারী খন্দকার ফরিদ উদ্দিন গোলাপগঞ্জ চৌমুহনীতে অবস্থিত পূর্ব সিলেটের অন্যতম বৃহৎ বিপণী বিতান নূর ম্যানশনের স্বত্বাধিকারী। এছাড়াও তিনি গোলাপগঞ্জের চৌঘরীতস্থ খন্দকার ফরিদ উদ্দিন একাডেমীর প্রতিষ্ঠাতা। প্রবীণ কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও সমাজসেবী খন্দকার ফরিদ উদ্দিন এর মৃত্যুতে লন্ডনের বাঙালি কমিউনিটিতে ও গোলাপগঞ্জে মরহুমের নিজ ইউনিয়নে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এদিকে, যুক্তরাজ্য প্রবীণ কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব খন্দকার ফরিদ উদ্দিন এর মৃত্যুতে গোলাপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী,গোলাপগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ চৌধুরী,প্রাক্তন চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান, গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি আব্দুল আহাদ, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ আহমদ চৌধুরী শোক প্রকাশ করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close