ইংল্যান্ডএডিটর্স পিকস

লকডাউনের কারণে মারা যেতে পারেন ৭৫ হাজার ব্রিটিশ-ডেইলি মেইল

ব্রিটেনের বিজ্ঞানীদের পরামর্শক সংস্থা-স্যাগ এর নতুন একটি জরিপে উঠে আসে, হাসপাতাল এবং বৃদ্ধাশ্রমগুলোতে এলোমেলো পরিস্থিতির কারণে এ বছরের মার্চ থেকে এপ্রিল পর্যন্ত ১০ হাজার মানুষ মারা গিয়েছেন। গবেষণায় বলা হয়, জরুরি চিকিৎসা সহায়তা ও সেবা না হলে আরো ২৬ হাজার ব্রিটিশ প্রাণ হারাতে পারেন। ডেইলি মেইল

এই নথিতে আরো উঠে আসে, ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীরা ডায়াগনসিস করাতে না পারায়, রোগের অপারেশন না হওয়ায় এবং অর্থনৈতিক মন্দার কারণে স্বাস্থ্যখাতে প্রভাব পড়ায় আগামী ৫ বছরে আরো ৩১ হাজার ৯০০ জন মারা যেতে পারেন। এর মধ্যে ১২ হাজার ৫০০ জন অপারেশন বাতিল হওয়ায় এবং ১ হাজার ৪০০ জন ক্যান্সারের ডায়াগনসিস করাতে না পারায় প্রাণ হারাতে পারেন। এবং বৃদ্ধাশ্রমগুলোতে করোনা আক্রান্ত না হয়ে শুধুমাত্র চিকিৎসা জনিত কারণে মারা যেতে পারেন ১৬ হাজার।

গবেষণা মতে, যদি কিছুতেই ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনা না যায় তবে ব্রিটেনেই কোভিড-১৯এ ৪ লাখের বেশি প্রাণ হারাতে পারেন।

তবে কর্তৃপক্ষ লকডাউনের ইতিবাচক দিকও তুলে এনেছে। দেখা গেছে লকডাউনের কারণে বাতাসের মানের উন্নতি হয়েছে এবং সড়ক দূর্ঘটনা কমে এসেছে। লকডাউনের কারণে বছর সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১ হাজার হ্রাস পেতে পারে। সেই সঙ্গে স্বাস্থ্যকর জীবন-যাপন বেছে নেয়ার জন্য বাঁচতে পারে ৪ হাজার প্রাণ।

আগামী ২৩ মার্চ সর্বপ্রথম ব্রিটেনে লকডাউন আরোপ করা হয়। এরপর জুন থেকে দফায় দফায় বিধি-নিষেধ তুলে নেয়া হলেও মধ্য-সেপ্টেম্বর থেকে করোনার দ্বিতীয় মাত্রার সংক্রমণ দেখা দেয়া নতুন করে লকডাউন আরোপ করা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close