সমগ্র বিশ্ব

ভারতে করোনা সংক্রমণ ৬০ লাখের কাছাকাছি

ভারতে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে করোনা সংক্রমণ দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। ইতোমধ্যেই দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৬০ লাখের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৮৮ হাজার ৬শ জন এবং মারা গেছে ১ হাজার ১২৪ জন। খবর এনডিটিভির।

তবে আশার কথা হচ্ছে দৈনিক সংক্রমণের চেয়ে দৈনিক সুস্থতার হার এখনও বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সুস্থ হয়ে উঠেছে ৯২ হাজার ৪৩ জন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুযায়ী, ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৫৯ লাখ ৯২ হাজার ৫৩২।

এখন পর্যন্ত কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৯৪ হাজার ৫০৩ জনের। সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৪৯ লাখ ৪১ হাজার ৬২৭ জন। ভারতে বর্তমানে অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা ৯ লাখ ৫৬ হাজার ৪০২। দেশটিতে এখন পর্যন্ত সুস্থতার হার ৮২ দশমিক ৪৬ শতাংশ এবং মৃত্যুহার ১.৫৮ শতাংশ। ভারতে গত কয়েকদিন ধরেই দৈনিক সংক্রমণের চেয়ে সুস্থতার হার বেশি।

দেশটির মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, কর্নাটক এবং উত্তরপ্রদেশ এই পাঁচ রাজ্যেই করোনার প্রকোপ সবচেয়ে বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় এই ৫ রাজ্যেই সবচেয়ে বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এসব রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৯ হাজার ১৭৬। যা গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের মোট আক্রান্তের সংখ্যার ৫৫ দশমিক ৫০ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে ৯ লাখ ৮৭ হাজার ৮৬১ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমণে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এই তালিকায় দ্বিতীয় অস্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত কোভিড সংক্রমণে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। ওই রাজ্যে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ লাখ ৭৫৭। কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৩৪ হাজার ৭৬১ জনের। করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছে ৯ লাখ ৯২ হাজার ৮০৬। মহারাষ্ট্রে বর্তমানে করোনার অ্যাক্টিভ কেস ২ লাখ ৭৩ হাজার ১৯০।

দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ। সেখানে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৬১ হাজার ৪৫৮। কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৬০৬ জনের। সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছে ৫ লাখ ৮৮ হাজার ১৬৯ জন। অন্ধ্রপ্রদেশে করোনার অ্যাক্টিভ কেস ৬৭ হাজার ৬৮৩।

তৃতীয় স্থানে থাকা তামিলনাড়ুতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৫ লাখ ৬৯ হাজার ৩৭০ জন। সেখানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৯ হাজার ১৪৮ জনের। সেখানে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছে ৫ লাখ ১৩ হাজার ৮৩৬ জন এবং বর্তমানে করোনার অ্যাক্টিভ কেস ৪৬ হাজার ৩৮৬।

এদিকে, কর্নাটকে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৫ লাখ ৫৭ হাজার ২১২ জন। কোভিড সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৮ হাজার ৪১৭ জনের এবং সুস্থ হয়ে উঠেছে ৪ লাখ ৫০ হাজার ৩০২ জন। কর্নাটকে করোনার অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা ৯৮ হাজার ৪৯৩।

উত্তরপ্রদেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৭৮ হাজার ৫৩৩। সেখানে করোনা সংক্রমণে মারা গেছে ৫ হাজার ৪৫০ জন। ওই রাজ্যে করোনাকে জয় করে সুস্থ হয়ে উঠেছে ৩ লাখ ১৩ হাজার ৬৮৬ জন। উত্তরপ্রদেশে করোনার অ্যাক্টিভ কেস ৫৯ হাজার ৩৯৭।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close