ইংল্যান্ড

বৃটেনের একাদিক ইউনিভার্সিটিতে আরো ১৮০০ শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত

বৃটেনের উত্তর পূর্বাঞ্চলে আরো ১৮০০ শিক্ষার্থীর শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এর মধ্যে নিউক্যাসল ইউনিভার্সিটিতে ১০০৩ জন শিক্ষার্থী ও ১২ জন স্টাফ করোনা সংক্রমিত হয়েছেন গত সপ্তাহে। আগের শুক্রবারে এই সংখ্যা ছিল ৯৪। ওদিকে নর্দামব্রিয়া ইউনিভার্সিটিতে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৬১৯ জন।

গত সপ্তাহে এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জানানো হয়েছিল যে, মধ্য সেপ্টেম্বর থেকে সেখানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৭০ জন। গত সপ্তাহে ডারহাম ইউনিভার্সিটির ২১৯ জন শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এমন অবস্থায় বেশির ভাগ শিক্ষা কার্যক্রম অনলাইনে সম্পন্ন করছে নিউক্যাসল ও নর্দামব্রিয়া ইউনিভার্সিটি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

এতে আরও বলা হয়েছে, করোনা সংক্রমণ বেশির ভাগই হয়েছে সামাজিক ও আবাসিক অবস্থান থেকে। তবে তারা ক্যাম্পাসে প্রতিজন মানুষকে সুরক্ষা নিশ্চিত করতে যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছে বলে আস্থাশীল। যেসব শিক্ষার্থী আইসোলেশনে বা কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন তারা বিভিন্ন সহায়তা প্যাকেজ পাচ্ছেন। এর মধ্যে রয়েছে মানসিক স্বাস্থ্য সহায়তা, খাবার ভাউচার সহ বিভিন্ন রকম সহায়তা।
নর্দামব্রিয়া ইউনিভার্সিটি বলেছে, তাদের যেসব শিক্ষার্থী স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে রয়েছেন তাদেরকে সহায়তা দিতে ব্যাপকভিত্তিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। স্টাফ বা ছাত্র ইউনিয়নগুলো অনলাইনে অথবা খাবার পার্সেল পাঠিয়ে এসব সেবা দিচ্ছেন। সামনাসামনি লেকচার নিয়ে নর্দামব্রিয়া ইউনিভার্সিটির স্টাফরা ধর্মঘটের পক্ষে ভোট দেয়ার পর তাদের শিক্ষা কার্যক্রম অনলাইনে চালানোর ঘোষণা দেয়া হয়েছে বুধবার। এ বিষয়টি ২৩ শে অক্টোবর আবার রিভিউ করা হবে।

নর্দামব্রিয়া ইউনিভার্সিটিতে ফ্যাশন বিষয়ে পড়াশোনা করেন এমিলি কোসসিক-জোনস। তিনি প্রথম বর্ষের ছাত্রী। বলেছেন, করোনা ভাইরাস পজেটিভ ধরা পড়ার পর তিনি সবেমাত্র কোয়ারেন্টিন শেষ করেছেন। তিনি ব্লগে লিখেছেন, কিচেন এড়িয়ে তিনি রুমেই নুডলস খাওয়াকে বেছে নিয়েছেন।

আবাসিক ভবনে শিক্ষার্থীরা দেখাসাক্ষাত করেন, বৈঠক করেন। সেখানে স্বেচ্ছায় আইসোলেশন করা খুব জটিল বলে মনে করেন তিনি। তিনি ব্লগে লিখেছেন, মানুষজন মনে করে শিক্ষার্থীরা ছোট্ট স্থানে পুরোপুরি সভ্যতা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে বসবাস করছে। এ বিষয়টি আমাকে ক্ষুব্ধ করে। এক্ষেত্রে শিক্ষা গ্রহণের সময় মারাত্মকভাবে ফুরিয়ে যাচ্ছে। ফুরিয়ে যাচ্ছে সামাজীকিকরণের জন্য অবাধ সময়। শিক্ষার্থীরা ঘনিষ্ঠভাবে অবস্থান করে। তারা আবাসিক স্থানে অবিলম্বে সামাজিকীকরণের দিকে ধাবিত হন। সেক্ষেত্রে পর্যাপ্ত আবাসনের ব্যবস্থা না নিয়ে রাত ১০টায় পাব বন্ধ করে দেয়া পুরোপুরি অকার্যকর।

ওদিকে নিউক্যাসল ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ক্রিস ডে কোভিড বিধিনিষেধ কার্যকরের আচরণ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, তারা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছে। নিউক্যাসল সিটি কাউন্সিল এবং নর্দামব্রিয়া পুলিশের উপস্থিতিতে একটি সামাজিক বৈঠকে বক্তব্য রাখছিলেন প্রফেসর ডে। তিনি বলেন, এ বিষয়ে তিনি নিশ্চয়তা চান যে, তারা যা খুশি তাই করতে পারেন না, যেসব বিষয় আমি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জানতে পারছি।

ওদিকে ডারহাম ইউনিভার্সিটির ১৭টি কলেজের মধ্যে দুটিতে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের বলা হয়েছে ক্যাম্পাসেই অবস্থান করতে। আগামী সাতদিন বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানেই শুধু যোগ দিতে পারবেন তারা। ওদিকে সেইন্ট মেরি’জ কলেজে ৩০০ শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রায় ৫০ জন এবং কলিংউড কলেজে ৫০০ শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রায় ৫০ জনের করোনা পজেটিভ ধরা পড়েছে। এর আগে ইউনিভার্সিটি অব সান্দারল্যান্ড বলেছে, ৭ই অক্টোবর পর্যন্ত তাদের ১০২ জন শিক্ষার্থী ও ৯ জন স্টাফ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close