টপ স্টোরিজ

ইরান কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন ব্রিটিশ-অস্ট্রেলিয়ান অ্যাকাডেমিক

গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে দুই বছরের বেশি সময় বন্দি থাকার পর ইরানের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন ব্রিটিশ-অস্ট্রেলিয়ান অ্যাকাডেমিক কাইলি মুরে-গিলবার্ট। তিন ইরানি নাগরিককে মুক্তি দেওয়ার বিনিময়ে ইউনিভার্সিটি অব মেলবোর্ন-এর এই লেকচারারকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। মুক্তি পাওয়ার পর এক বিবৃতিতে অস্ট্রেলিয়ার সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন এই ৩৩ বছর বয়সী এই অ্যাকাডেমিক। মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএন’র প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

মেলবোর্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মিডল ইস্টার্ন স্টাডিজের লেকচারার কাইলি মুরে-গিলবার্ট অস্ট্রেলিয়ার পাসপোর্ট নিয়ে ২০১৮ সালে ইরানে যান। এক সম্মেলনে যোগ দিয়ে ফেরার পথে তেহরান বিমানবন্দরে তাকে আটক করে ইরানি কর্তৃপক্ষ। গত বছর তাকে গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে অভিযুক্ত করে দশ বছরের কারাদণ্ড দেয় ইরানের আদালত।

ইরানের রাষ্ট্র-সমর্থিত বার্তা সংস্থা ইয়াং জার্নালিস্ট ক্লাব (ওয়াইেজসি) জানিয়েছে, তিন ইরানি ব্যবসায়ীর মুক্তির বিনিময়ে কাইলি মুরে-গিলবার্টকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। তেহরানের ওপর আরোপিত মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গের অভিযোগে এসব ইরানি নাগরিককে আটক করা হয়। তবে এসব ইরানি নাগরিকের পরিচয় প্রকাশ করেনি বার্তা সংস্থাটি।

ইরানের কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পর এক বিবৃতিতে কাইলি মুরে-গিলবার্ট তার মুক্তির জন্য চেষ্টা চালানোর কারণে অস্ট্রেলিয়ার সরকার ও অন্যদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি জানান, গত দুই বছর তিন মাস কারাবন্দির সময়টি ছিলো ‘একটি দীর্ঘ এবং হতাশাজনক অভিজ্ঞতা’। নিজে অবিচারের শিকার হয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘মহৎ ইরান রাষ্ট্র এবং এর উষ্ণ হৃদয়পূর্ণ, উদার এবং সাহসী জনগণের জন্য আমার শ্রদ্ধা, ভালোবাসা এবং প্রশংসা ছাড়া আর কিছুই নেই।’

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close