স্কটল্যান্ড

লকডাউন স্কটল্যান্ডে

করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের সংক্রমণ রোধে আবারও লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে যুক্তরাজ্যে। একই সঙ্গে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে স্কটল্যান্ডেও। গতকাল সোমবার দেশটির ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টার্জেন এ ঘোষণা দেন।

স্কটল্যান্ডের পার্লামেন্টে লকডাউনের বিষয়টি উপস্থাপন করে নিকোলা বলেন, স্কটল্যান্ডের মূল ভূখন্ডে এলাকায় (টিয়ার) লেভেল-৪ ঘোষণা করা হয়েছে। জানুয়ারি জুড়ে পুরো সময়টা জনগণকে ঘরে থাকতে বলা হচ্ছে। ফেব্রুয়ারি শুরু না হওয়া পর্যন্ত স্কুল বন্ধ থাকবে।

পরে গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিকোলা বলেন, করোনাভাইরাস ইস্যুতে বর্তমানে আমরা যে কঠিন অবস্থা মোকাবিলা করছি, তাতে খুব বেশি উদ্বিগ্ন। বৃটেনে নতুন ধরনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় স্কটল্যান্ডে লেভেল-৪ নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

নতুন এ বিধিনিষেধে বলা হয়েছে, অত্যাবশ্যকীয় কোনো কাজ ব্যতীত বাইরে বের হওয়া যাবে না। ঘরে বসেই কাজ করতে হবে। ব্যবসা পরিচালনা বাসায় থেকেই করতে হবে। যদি কেউ বাসায় বসে কাজ না করতে পারেন, তাহলে কাজ করারই দরকার নেই।

এদিকে স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার ডাউনিং স্ট্রিট থেকে সম্প্রচারিত এক টিভি ভাষণে লকডাউনের ঘোষণা দেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। আগামীকাল বুধবার সকাল থেকে নতুন জারি হওয়া লকডাউনের নিয়মগুলো আইনে পরিণত হবে। আর নতুন জারি করা নির্দেশনাগুলো অন্তত মধ্য ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

বিবিসি, সিএনএনসহ একাধিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আজ মঙ্গলবার থেকে দেশের সব স্কুল ও কলেজ বন্ধ থাকবে। শিক্ষার্থীরা আবারও অনলাইন ক্লাসে ফিরে যাবে। এবারের লকডাউনেও প্রথমবারের মতো কড়াকড়ি নিয়মের মধ্য দিয়ে দেশবাসীকে যেতে হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, সোমবার যুক্তরাজ্যে টানা সাত দিনের মতো নতুন করে ৫০ হাজার মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এ ছাড়া ২৮ দিনে আরও ৫৮ হাজার ৭৮৪ জন নতুন করে শনাক্ত হওয়ার এবং ৪০৭ জন মৃত ব্যক্তির করোনা টেস্ট পজিটিভ এসেছে বলেও জানানো হয়েছে। যদিও স্কটল্যান্ডের হিসাব অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close