সোনার বাংলাদেশ

ঢাবি ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ ৭ নেতা বহিষ্কার

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ সাত নেতাকে ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। সংগঠনের ‘শৃঙ্খলা এবং নৈতিকতা পরিপন্থী’ কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে গতকাল বুধবার কেন্দ্রীয় সংসদের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সংগঠনটির পক্ষ থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বহিষ্কৃতরা হলেন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, কেন্দ্রীয় সংসদের সহসভাপতি সম্পা দাস, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সভাপতি সাখাওয়াত ফাহাদ, সাধারণ সম্পাদক রাগীব নাঈম, সহকারী সাধারণ সম্পাদক মেঘমল্লার বসু, ঢাকা মহানগর সংসদের সভাপতি তাসিন মল্লিক, সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল হোসেন ও সাংগঠনিক সম্পাদক সাদাত মাহমুদ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সহসভাপতি মাহির শাহরিয়ার রেজাকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং সহকারী সাধারণ সম্পাদক শিমুল কুম্ভকারকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এ ছাড়া ‘অসাংগঠনিক’ কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে সংগঠনটির বিভিন্ন সংসদের বেশ কয়েকজন নেতাকে সতর্কও করা হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত সংগঠনের কেন্দ্রীয় সংসদের চতুর্থ কার্যনির্বাহী সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কেন্দ্রীয় সংসদের সহসভাপতি নজির আমিন চৌধুরী জয়, সহসভাপতি জয় রায়, সহকারী সাধারণ সম্পাদক মিখা পিরেগু, সহকারী সাধারণ সম্পাদক তামজিদ হায়দার চঞ্চল, সদস্য সাদ্দাম হোসেম, সদস্য রথীন্দ্রনাথ বাপ্পীকে ‘অসাংগঠনিক’ কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে সতর্ক করা হয়েছে। পরবর্তীতে এমন কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত হলে যথাযথ সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

সভায় সংগঠনের গঠনতন্ত্রের ৪৮ (ক) ধারা লঙ্ঘনের দায়ে গঠনতন্ত্রের ৫৬ (গ) ধারা অনুযায়ী বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, ঢাকা মহানগর সংসদ এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত করা হয়। ঢাকা মহানগর সংসদে ২১ সদস্যবিশিষ্ট এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সংসদে ১৫ সদস্যবিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সংগঠন পরিপন্থী কাজের বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ফয়েজ উল্লাহ বলেন, ‘সাংগঠনিক বিশৃঙ্খলা এবং উপদলীয় তৎপরতার কারণে কয়েকজন নেতাকে ছয় মাসের জন্যে বহিষ্কার এবং কয়েকজনকে সতর্ক করা হয়েছে। আগামী ১২ মার্চ সংগঠনের জাতীয় পরিষদের সভা আহ্বান করা হয়েছে। এই সভা আমাদের সর্বোচ্চ পরিষদ। সংগঠন পরিচালনার সব বিষয় জাতীয় পরিষদে উপস্থাপন করা হয়। এখানে প্রস্তাবগুলো পাস হয়ে সিদ্ধান্তগুলো দেশব্যাপী পৌঁছে দেওয়া হয়।’

আহ্বায়ক কমিটির বিষয়ে ফয়েজ বলেন, ‘গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কেন্দ্রীয় কমিটি যেকোনো সংসদের কমিটি বহিষ্কার করার এখতিয়ার রাখে। অন্য সব সিদ্ধান্ত জাতীয় পরিষদ হয়ে নিতে হয়। তবে পরিষদে কমিটির বিলুপ্তি ও আহ্বায়ক কমিটির বিষয়েও আলোচনা করা হবে।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close