খেলাধুলা

কিউইদের কাছে ধরাশায়ী টাইগাররা

প্রথম ম্যাচে টস হারের পর ম্যাচটিও হেরে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ৮ উইকেটে জয় তুলে নিয়েছে নিউজিল্যান্ড। কিউইদের পক্ষে সবচেয়ে বেশি রান করেন নিকোলাস (৪৯)। বাংলাদেশের পক্ষে ব্ল্যাক ক্যাপসদের দুটি উইকেট শিকার করেন তাসকিন আহমেদ ও হাসান মাহমুদ।

আজ শনিবার তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ডানেডিনে টসে হেরে ব্যাটিং করে টাইগাররা। শুরুতেই উইকেট বিপর্যয়ে ৫০ ওভারের এ খেলায় মাত্র ১৩১ রানে শেষ হয়ে যায় তামিমদের ইনিংস। ৪১ ওভার পাঁচ বল খেলে অল আউট হন মুশফিকরা। অপর দিকে নিজেদের ব্যাটিং ইনিংসে জয় তুলে নিতে গাপটিলরা খেলেন ২১ ওভার ২ বল।

এ নিয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে টানা ১৪ ম্যাচ হারল বাংলাদেশ। এছাড়া ওয়ানডে সুপার লিগেও এটি টাইগারদের প্রথম পরাজয়।

নিজেদের ইনিংসে বাংলাদেশের দেওয়া ১৩২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দুর্দান্ত শুরু করেন ডানহাতি ওপেনার মার্টিন গাপটিল। মোস্তাফিজুর রহমানের করা প্রথম ওভারেই চার-ছয় হাঁকিয়ে ১০ রান করেন তিনি। ৫ ওভারে কিউইদের পূরণ হয় দলীয় পঞ্চাশ রান। ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে বোলিংয়ে আসেন তাসকিন আহমেদ। তার ওভারের তৃতীয় বলে বড় শট হাঁকাতে গিয়ে কট বিহাইন্ড হন তিনি। আউট হওয়ার আগে ৩টি চার ও ৪টি ছয়ের মারে মাত্র ১৯ বলে করেন ৩৮ রান।

তিন নম্বরে ব্যাট করতে আসেন অভিষিক্ত ডেভন কনওয়ে। আরেক ওপেনার হেনরি নিকলসের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে যোগ করেন ৬৫ রান। দলের জয়ের জন্য মাত্র ১৩ রান বাকি থাকতে হাসান মাহমুদের বলে মাহমুদউল্লাহর হাতে ক্যাচে পরিণত হন ৫২ বলে ২৭ রান করা কনওয়ে।

নিকোলাস ফিফটি করতে পারতেন। কিন্তু তার আগেই শেষ হয় ম্যাচটি। ইনিংসের ২২তম ওভারের জোড়া চার মেরে ম্যাচ শেষ করেন আরেক অভিষিক্ত উইল ইয়ং। নিকলস অপরাজিত থাকেন ৫৩ বলে ৪৯ রান করে। ইয়ং করেন ৬ বলে ১১ রান।

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। শুরুতেই সাজঘরে ফেরেন দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ট্রেন্ট বোল্টের করা ইনিংসের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে ছক্কা হাঁকিয়ে দলের ও নিজের রানের খাতা খুলেছিলেন তিনি। কিন্তু বোল্টের করা ইনিংসের চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ে আউট হয়ে যান তিনি। তার বিদায়ের পর একই ওভারের চতুর্থ বলে ডেভন কনওয়ের হাতে বন্দি হয়ে বিদায় নেন সৌম্য সরকার (০)।

এরপর তৃতীয় উইকেটে ২৩ রান যোগ করেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। উইকেটে থিতু হয়ে যাওয়া লিটন দাস্র সহজ ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন। জেমস নিশামের প্রথম ওভারেই ক্যাচ তুলে দিয়ে বলের দিকে তাকিয়ে থাকা ছাড়া আর কিছুই করার ছিল না। ৩৬ বলে ১৯ রান করেন লিটন।

মুশফিকুর রহিম শুরু থেকেই টিকে থাকার সংগ্রাম করছিলেন। ২৫ বলে ৫ রান নিয়েও ধৈর্য্যশীল ব্যাট করেছেন তিনি। তবে রানের গতি বাড়াতে গিয়ে মুশফিকও ব্যর্থ হয়েছেন। নিশামের বলে পয়েন্টে থাকা মার্টিন গাপতিলের হাতে ক্যাচ দেন তিনি। ৪৯ বলে ২৩ রানেই সমাপ্তি ঘটে মুশফিকের ইনিংস। মুশফিক চলে যাওয়ার পরের ওভারেই সাজঘরে ফিরেন মোহাম্মদ মিঠুন। ২৭ বলে ৯ রান করেন মিঠুন।

দলীয় ৭২ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। ফলে রানের চাকা ঘুরানো ছাড়াও ব্যাটসম্যানদের টিকে থাকাটাই বড় চেলেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়। ১০ বলে ১ রান করে মেহেদী হাসান মিরাজ বোল্ড হলে ৭৮ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর অভিষিক্ত মেহেদী হাসান ছক্কা হাঁকিয়ে খাতা খুললেও ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। ১৪ রান করে সান্টনারের বলে বিদায় নেন তিনি। তাসকিনকে সাথে নিয়ে হাত খুলে খেলতে গিয়ে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও ব্যর্থ হন। ৫৪ বলে ২৭ রান করা রিয়াদও ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন।

১২৫ রানে রিয়াদের বিদায়ের পর বাংলাদেশের ইনিংসে যোগ হয় আরও ৬টি রান। বোল্টের বলে বোল্ড হওয়ার আগে হাসান মাহমুদের ব্যাট থেকে আসে ১টি রান। আর এক বল পরেই ১০ রান করা তাসকিনকে বিদায় করে বাংলাদেশের ইনিংসের সমাপ্তি ঘটান বোল্ট। অন্যপ্রান্তে ১ রানে অপরাজিত ছিলেন মোস্তাফিজ।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে বল হাতে ৪ উইকেট শিকার করেছেন ট্রেন্ট বোল্ট। এছাড়া ২টি করে উইকেট নিয়েছেন নিশাম ও স্যান্টনার।

  

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close