আমাদের কমিউনিটি

এবি পার্টিতে যোগ দিলেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী ক্রিমিনোলজিস্ট ড. শাহেদ চৌধুরী

লন্ডন থেকে ভার্চুয়াল এক সংবর্ধনা সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে এবি পার্টিতে (আমার বাংলাদেশ পার্টি) যোগদান করেছেন খ্যাতিমান ক্রিমিনোলজিস্ট, ড. শাহেদ চৌধুরী।

শাহেদ চৌধুরী কক্সবাজার চকরিয়ার ঐতিহ্যবাহী মনুমিয়াজি জমিদার পরিবারের সন্তান এবং বৃটেনের অক্সফোর্ডে বসবাসরত একজন কীর্তিমান বাংলাদেশী। যিনি একজন বরেণ্য রেস্টোরোটিভ জাস্টিস বিশেষজ্ঞ হিসেবে বিশ্ব পরিমন্ডলে বেশ সমাদৃত। ৮ মে শনিবার বৃটিশ সময় বেলা ২ টা এবং বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭ টায় পূর্ব লন্ডনের হোয়াইটচ্যাপলে এবি পার্টি ইউকে শাখা ড. শাহেদ চৌধুরীর যোগদান উপলক্ষে  এক ভার্চুয়াল সংবর্ধনা সভার আয়োজন করে।

দলের সহকারী সদস্য সচিব ব্যরিস্টার নুরুল গাফ্ফারের সঞ্চালনায় এবং এবি পার্টি ইউকে শাখার আহ্বায়ক হারুণ অর রশীদের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দলের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক। সংবর্ধনা সভায় এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক প্রফেসর ডা. মেজর (অব.) আব্দুল ওহাব মিনার ও সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মন্জু সহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ দলের প্রধান কার্যালয় থেকে এবং কক্সবাজার ও চকরিয়া থেকে দলীয় নেতা কর্মীরা সংযুক্ত হন। অনুষ্ঠানটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে  সরাসরি সম্প্রচারিত হয়।

সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথি ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক ড. শাহেদ চৌধুরীকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, তার মত একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিমান শিক্ষাবিদ ও বিশেষজ্ঞ গবেষকের এবি পার্টিতে যোগদান বিরাট একটি মাইল ফলক। এবি পার্টি গবেষনা ভিত্তিক পলিসি নির্ধারনের মাধ্যমে রাষ্ট্র সমস্যা সমাধানের যে নীতি গ্রহণ করেছে শাহেদ চৌধুরীর মত ব্যক্তিদের সংযুক্তির মাধ্যমে তা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

এবি পার্টির সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মনজু বলেন, শাহেদ চৌধুরীর যোগদানে শুধু বৃটেনে  নয় তাঁর জন্মভূমি কক্সবাজার জেলায়ও ব্যাপক প্রাণ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। তাঁর মত গুনী ব্যক্তিদের নেতৃত্বে বাংলাদেশ সত্যিকার কল্যান রাষ্ট্রে উন্নীত করা সম্ভব হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

দলে যোগ দিয়ে সংবর্ধিত ক্রিমিনোলজিস্ট ড. শাহেদ চৌধুরী বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের হাত ধরে জাগদলের মাধ্যমে রাজনীতি শুরু করলেও পরবর্তীতে শিক্ষা ও গবেষনায় মনোনিবেশ করে আমি রাজনীতি থেকে দুরে সরে আসি। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কাজ করতে গিয়ে সবসময় নিজের দেশের জন্য কষ্ট অনুভব করতাম। এবি পার্টি গঠনের পর এর সেবা ও সমস্যা সমাধানের কর্মসূচি ভিত্তিক রাজনৈতিক নীতি আমাকে আকর্ষণ করে। দেশের ব্যপারে আমার যে দীর্ঘদিনের আশাবাদ তার বাস্তবায়নে নতুন এই দলকে গড়ে তোলার আগ্রহ অনুভব করি। বৃটেনে দলের তরুণ নেতাদের সাথে আলাপ আলোচনা করে আমি পুলক অনুভব করি ও এই তারুণ্যোদ্দীপ্ত দলের সাথে কাজ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। আজ থেকে এবি পার্টির লক্ষ্য ও কর্মসূচি বাস্তবায়নে আমার শ্রম ও মেধাকে আমি উৎসর্গ করলাম।

সংবর্ধনা সভায় সদ্য যোগদানকারীকে স্বাগত জানিয়ে আরো বক্তব্য রাখেন এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর কাশেম, যুগ্ম সদস্য সচিব ব্যারিস্টার খান মো. আজম, ব্যারিস্টার আসাদুদ্দামান ফুয়াদ, বিএম নাজমূল হক, সহকারী সদস্য সচিব আবদুল আউয়াল মামুন, আমিনুল ইসলাম এফসিএ, এডভোকেট আব্দুল্লাহ আল মামুন রানা, কক্সবাজার জেলা আহ্বায়ক এডভোকেট এনামুল হক শিকদার, সদস্য সচিব গোলাম ফারুক খান কায়সার, আনোয়ার সাদাত টুটুল, এএফ উবায়দুল্লাহ আল মামুন, যুবনেতা সরওয়ার সাঈদ, আব্দুল্লাহ আল হাসান সাকীব, চকরিয়া উপজেলা সদস্য সচিব এবি ওয়াহেদ প্রমূখ। খবর সংবাদ বিজ্ঞপ্তির।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close