ইংল্যান্ডখবর

বাংলাদেশিদের জন্য কোয়ারেন্টিন তুলে নিচ্ছে বৃটেন

বৃটেন অনুমোদিত করোনা ভাইরাসের টিকার পূর্ণ ডোজ যারা নিয়েছেন, তাদের জন্য বাধ্যতামূলক হোটেলে বা বাসায় ১০ দিনের কোয়ারেন্টিনের বিধান তুলে নিচ্ছে বৃটিশ সরকার। এ নির্দেশ ১১ই অক্টোবর সোমবার ভোর ৪টা থেকে কার্যকর হবে। এ ছাড়া বৃটেনের উদ্দেশে দেশ ছাড়ার আগে করোনা ভাইরাসের যে পরীক্ষা করাতে হতো, তারও প্রয়োজন হবে না। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি করোনা ভাইরাসের পূর্ণ ডোজ টিকা নিয়েছেন এমনটা প্রমাণের জন্য বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের টিকা দেয়ার সনদ প্রয়োজন হবে। লন্ডনে অবস্থিত বাংলাদেশ হাই কমিশনের এক বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়েছে। এতে আরো বলা হয়, ইংল্যান্ড পৌঁছার দ্বিতীয় দিনে অথবা আগে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করা উচিত। তবে যারা এখনও বৃটেন অনুমোদিত টিকার পূর্ণ ডোজ গ্রহণ করেননি, তাদেরকে বাসায় অথবা যেখানে তারা অবস্থান করবেন, সেখানেই বাধ্যতামূলকভাবে ১০ দিনের কোয়ারেন্টিন পালন করতে হবে। পাশাপাশি দ্বিতীয় দিনে এবং অষ্টম দিনে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করাতে হবে।
বিবৃতিতে জানানো হয়, বৃটিশ সরকার অনুমোদিত কোভিড-১৯ টিকার আওতায় বাংলাদেশকে তালিকাভুক্ত করেছে। তালিকাভুক্ত করেছে যেসব দেশ অনুমোদিত কোভিড-১৯ টিকা নিয়েছে, তাদের সঙ্গে। বৃটিশ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের ঘোষণাকে উদ্ধৃত করে এ কথা জানানো হয়েছে। সরকারের এই ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন লন্ডনে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশ ও বৃটেনের মধ্যে উষ্ণ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের প্রতিফলন ঘটেছে এর মধ্য দিয়ে। দুই দেশের মধ্যে ব্যবসা, পর্যটন, অত্যাবশ্যকীয় ভ্রমণের জন্য বিদ্যমান বাধাগুলো দূর করতে হাই কমিশন যে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালিয়েছে, এটা তারই ফল।
এর আগে ১৭ই সেপ্টেম্বর বৃটেনের লাল তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয় বাংলাদেশকে। এই নির্দেশ কার্যকর হয়েছে ২২শে সেপ্টেম্বর ভোর ৪টা থেকে।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close