ফিচার

অতিরিক্ত প্রোটিন গ্রহণে কী হতে পারে, জানেন?

শরীর সুস্থ রাখতে অন্যতম অপরিহার্য উপাদান হলো প্রোটিন। মাছ, মাংস, ডিম, দুধ, বাদাম, পনির, ঘি-মাখন প্রভৃতি থেকে প্রয়োজনীয় এই উপাদানটি পাওয়া যায়। এটি পেশির গঠনে ও হাড় মজবুত, ত্বক ও চুলের পুষ্টির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শুধু তাই নয়, ওজন কমাতেও দরকার প্রোটিন।  কিন্তু আপনি জানেন কী, অতিরিক্ত প্রোটিনে গ্রহণ করলে শরীরে নানা জটিলতা দেখা দিতে পারে।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রোটিনের মাত্রাতিরিক্ত গ্রহণের ফলে শরীরে মারাত্মক বিরূপ প্রভাব দেখা দিতে পারে। আবার গবেষণাও বলছে, শরীরে প্রতি কিলোগ্রাম ওজনে এক গ্রাম প্রোটিনের দরকার হয়। কিন্তু তা কার্বোহাইড্রেট বা প্রয়োজনীয় ফ্যাটের তুলনায় বেশি হয়ে গেলে তাকে ‘প্রোটিন পয়জনিং’ বলা হয়।

শরীরের পক্ষে কতটা ক্ষতিকারক প্রোটিনের আধিক্য? চলুন জেনে নেওয়া যাক-

বাড়বে মুড স্যুইং, অবসাদগ্রস্ততা

শরীরে প্রোটিনের আধিক্য হলে নেতিবাচক মানসিকতা, মুড স্যুইংয়ের মতো সমস্যা বাড়তে পারে। শুধু তাই নয়, আমেরিকান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের মতে, প্রোটিনের মাত্রাতিরিক্ত গ্রহণের ফলে অবসাদ ও দুশ্চিন্তাও বাড়ে। ব্রেনে সেরোটোনিন হরমোনের মাত্রা কমে যায়। যার জন্য সঠিক মাত্রায় প্রোটিন গ্রহণে পরামর্শ নিতে হবে চিকিৎসকদের।

কার্বোহাইড্রেটকে উপেক্ষা নয়

ডায়েট থেকে কার্বোহাইড্রেট একেবারে ছেঁটে ফেলা উচিত নয় বলেই মত চিকিৎসকদের। প্রোটিনের আধিক্য ও কার্বোহাইড্রেটের অনুপস্থিতির ফলে শরীরে কেটোসিস পর্যায় লক্ষ্য করা যায়। শরীরে সঞ্চিত কার্বোহাইড্রেট ক্ষয় হতে থাকে। এনার্জি সংগ্রহে ফ্যাট বার্ন হতে থাকে এই সময়ে। যার ফলে মুখ ও শরীর থেকে দুর্গন্ধের মতো সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।

পর্যাপ্ত পানির দরকার

শরীর সুস্থ রাখতে পানির মাত্রা ঠিক থাকা দরকার। কিন্তু অধিক মাত্রায় প্রোটিন গ্রহণের ফলে ডিহাইড্রেশনসহ হজমের সমস্যাও দেখা যায়। যার ফলে মূত্রের সঙ্গে শরীর থেকে পটাশিয়াম, সোডিয়াম, ম্যাগনেশিয়ামের মতো গুরুত্বপূর্ণ উপাদান বেরিয়ে যায়।

হার্টের পক্ষেও বিপদ

হার্ট ভালো রাখতে প্রোটিন প্রয়োজনীয়। যদিও এর মাত্রাতিরিক্ত গ্রহণ হার্টের পক্ষেও বিপদ ডেকে আনতে পারে। ডিম ও দুগ্ধজাত বিভিন্ন দ্রব্যের মধ্যে ফ্যাট থাকায় তা শরীরে ফ্যাটের পরিমাণও বৃদ্ধি করে। শুধু তাই নয়, শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রাও বাড়িয়ে দেয়। যা স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক। তাই নিয়ম মেনে প্রোটিন গ্রহণেই সায় চিকিৎসকদের।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আরও দেখুন...

Close
Close